গ্রিক পুরাণ ও প্রাচীন গ্রিসের দেবদেবী

লেখক : রানা চক্রবর্তী

জিউস ছিলেন প্রাচীন গ্রিসের দেবদেবীর মধ্যে প্রধান। অলিম্পিয়ার জিউসের মূর্তি টি ছিল পৃথিবীর প্রাচীন সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে একটি। গ্রিক স্থপতি ফিডিয়াস খ্রিস্টপূর্ব ৪৩৫ অব্দে মূর্তিটির নক্সা করেছিলেন। যে দ্বীপের উপর মূর্তিটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তার পুরোটা জুড়ে এর

জগন্নাথধামে চৈতন্য মহাপ্রভুর অন্তর্ধান রহস্য – শেষ পর্ব

লেখক : রানা চক্রবর্তী

প্রথম পর্ব

শ্রীচৈতন্যের তিরোধানের স্থান কাল ও ধরন নিয়ে নানান মতের প্রেক্ষিতে একটা সিদ্ধান্ত অবধারিত এসে পড়ে যে, বর্ণনার কোনওটিই সম্পূর্ণ সত্য নয়, কোনও কোনও কথা আংশিক সত্য হলেও হতে পারে। তবে একটা ব্যাপার একেবারে নিশ্চিত, …

জগন্নাথধামে চৈতন্য মহাপ্রভুর অন্তর্ধান রহস্য – ১ম পর্ব

লেখক : রানা চক্রবর্তী

নবদ্বীপের ধামেশ্বর মহাপ্রভু মন্দিরেই নিত্য পূজিত হন বিষ্ণুপ্রিয়াদেবী সেবিত মহাপ্রভুর মূর্তি। কথিত রয়েছে, যে মূর্তি বিষ্ণুপ্রিয়াদেবী নির্মাণ করান চৈতন্যদেবের জীবিত কালেই। সন্ন্যাস গ্রহণের পর চৈতন্যদেবের সঙ্গে বিষ্ণুপ্রিয়াদেবীর আর কখনও দেখা হয়নি। কথিত আছে, বিরহকাতর বিষ্ণুপ্রিয়াদেবী স্বপ্নাদিষ্ট

পতিতাবৃত্তির উৎস সন্ধানে – শেষ পর্ব

প্রথম পর্ব

বৃটিশ আমলের পরিসংখ্যান দেখলে বোঝা যাবে কি অবস্থা ছিল ঐ সময়। “১৮৫৩ তে কলকাতা শহরে ৪০৪৯ টি বেশ্যাগৃহ ছিল যাতে বাস করছিলেন ১২,৪১৯ জন যৌনকর্মী। ১৮৬৭ তে ছিল ৩০,০০০ জন। ১৯১১ সালের আদশুমারি অনুযায়ী ১৪২৭১ জন। ১৯২১ সালের …

পতিতাবৃত্তির উৎস সন্ধানে – প্রথম পর্ব

লেখক : রানা চক্রবর্তী

হাজার বছরের এক পুরাতন ব্যবসার নাম পতিতাবৃত্তি। লোকমুখে যার আরো অনেক বিচিত্র নাম আছে – গণিকাবৃত্তি, বেশ্যাবৃত্তি, দেহব্যবসা ইত্যাদি। বিচিত্র এই দোকানীরাই আমাদের সমাজে পতিতা, গণিকা, বেশ্যা, রক্ষিতা নানাভাবে পরিগণিত হয়। যে প্রতিষ্ঠানে তারা বিক্রি করে

লিঙ্গরাজ মন্দির নিয়ে জানা অজানা কথা

লেখক : রানা চক্রবর্তী

লিঙ্গরাজ মন্দির উড়িষ্যায় অবস্থিত ভারতের প্রাচীন মন্দির গুলোর মধ্যে অন্যতম। মন্দিরটি শিব এবং বিষ্ণুর মিলিত রূপ হরিহরের নামে উৎসর্গীকৃত।
লিঙ্গরাজ মন্দির ভুবনেশ্বরের সব থেকে বড় মন্দির। কেন্দ্রীয় মিনারটি ১৮০ ফুট উঁচু। মন্দিরটি কলিঙ্গ স্থাপত্যকলা এবং মধ্যযুগীয় …

কোথায় গেল নেতাজির তৈরি করা ব্যাংক

লেখক : রানা চক্রবর্তী

ব্যাংক গড়েছিলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র! কোথায় গেল সেই ব্যাংক আজ?

ব্রিটিশদের হাত থেকে পরাধীন ভারতকে মুক্ত করতে শুধু জাতীয় আন্দোলনই করেননি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। তিনি গড়ে তুলেছিলেন ব্যাংকও। সেই ব্যাংকের নাম রেখেছিলেন আজাদ হিন্দ ব্যাংক। জাপানের সহায়তায় …

বাংলার কবিগান ও কবিয়ালদের ইতিবৃত্ত

লেখক : রানা চক্রবর্তী

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস শুরু হয় ৯৫০ খ্রিস্টাব্দ থেকে। ৯৫০ থেকে ১২০০ খ্রিস্টাব্দ অবধি সময়কালের ব্যাপ্তিকে বলে বাংলা সাহিত্যের প্রাচীন যুগ। এর পরবর্তী দেড়শ বছর, অর্থাৎ ১২০০ থেকে ১৩৫০ সাল পর্যন্ত ছিল বাংলা সাহিত্যের অন্ধকার যুগ। এই

সম্পর্ক : ন্যাশনাল হাইওয়ের সাথে মানুষের

লেখক : অয়ন মৈত্র

পাড়ার কানাগলি।কানাগলি যেমন হয় আর কি।পিচ উঠে এধার ওধার গর্ত। সাথে কুকুরের ময়লা,এঁটো ভর্তি পলিথিন প্যাকেট, আর খারাপ হয়ে যাওয়া একটা টিউবওয়েল নর্দমার ভুরু ঘেঁষে। এখন ঘটনা হল এই গলি দেখেই প্রতিদিন ঘুমোতে যেতিস তুই। এই …

দেবী তারার উৎস সন্ধানে

লেখক : রানা চক্রবর্তী

তারা বা “আর্যতারা” হলেন মহাযান বৌদ্ধধর্মের একজন নারী বোধিসত্ত্ব, যিনি বজ্রযান বৌদ্ধধর্মে একজন নারী বুদ্ধের মর্যাদা পান। তিব্বতি বৌদ্ধধর্মে তাঁকে “জেতসুন দোলমা” বলা হয়। তিনি “নির্বাণ-জননী” হিসেবে পরিচিত। তারা কাজ ও কীর্তির গুণাবলির সাফল্যের প্রতিনিধি। জাপানে

ভাওয়াল সন্ন্যাসী মামলা – জানা অজানা তথ্য (শেষ পর্ব)

ভাওয়াল মামলা: ১৯২৬ সালের ৮ ডিসেম্বর সন্ন্যাসী বোর্ড অব রেভিনিউর কাছে দাবি করেন, তার পরিচয় তদন্ত করার জন্য। কিন্তু বোর্ড সে দাবি অগ্রাহ্য করে। ১৯২৯ সালে সন্ন্যাসী ঢাকায় ফিরে আসেন এবং ১৯৩০ সালের ২৪ এপ্রিল নিজেকে মৃত রাজা রমেন্দ্র নারায়ণ …

ভাওয়াল সন্ন্যাসী মামলা – জানা অজানা তথ্য (দ্বিতীয় পর্ব)

ভাওয়াল রাজকুমার এবং রাজকুমারীদের জন্ম ইতিহাস রাজা রাজেন্দ্র নারায়ণ রায় চৌধুরী প্রাপ্ত বয়সে বিয়ে করেছিলেন বরিশাল জেলার বানারিপাড়ার জমিদার কন্যা রাণী বিলাসমণি দেবীকে। বিবাহিত জীবনে স্ত্রী বিলাসমণি দেবীর গর্ভে সর্বমোট তিন পুত্র ও তিন কন্যা জন্ম গ্রহণ করেন। প্রথম …

ভাওয়াল সন্ন্যাসী মামলা – জানা অজানা তথ্য (প্রথম পর্ব)

লেখক : রানা চক্রবর্তী

অধুনা বাংলাদেশের ভাওয়াল পরগনার (বর্তমানের গাজীপুর জেলা) মেজো কুমার রাজা রমেন্দ্র নারায়ণ রায় চৌধুরি কে ঘিরে যে চাঞ্চল্যকর মামলাটি দীর্ঘদিন ধরে চলেছিল, সেটাই মূলত ভাওয়াল সন্ন্যাসী মামলা নামে পরিচিত। যা শুরু হয়েছিল ১৯৩০ সালে এবং শেষ

Back to Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

বিভিন্ন লেখকের কবিতা গল্প পাঠ শুনতে এখানে ক্লিক করুন

লেখালিখি লোগো