এবং ঋতুপর্ণ

লেখক : সাইনি রায়

‘হীরের আংটি’-টা ভারি পছন্দ হয়েছিল।
সেদিন ছিল ‘উনিশে এপ্রিল’,
হঠাৎ এলো তপ্ত ‘দহন’ কাল।
যেদিন ‘বাড়িওয়ালি’-র হয়েছিল, গভীর ‘অসুখ’।
তাই তো ‘উৎসব’-এ সায় দেয়নি, ‘তিতলি’-র মন।
সুস্থ হলে পর, না হয় হবে ‘শুভ মহরত’!
আহ্ ‘চোখের …

অখণ্ড গোলাকার লকআপ

লেখক : পার্থ সরকার

বরং একটা কথা দেওয়াই যাক
নিতে হবে কিন্তু

ব্যাপক নিস্তব্ধতা
গোলাকার কোলাহলের ভিতর
এক মরশুমি আহাম্মক
ব্যাপক চতুরতা

পায়ে পায়ে
চলে যায় কথা
রহস্য
নমস্য নিমতিতা

তবু, কথা দিলাম
এপ্রান্তের সব হলাহল আমার
তোমার নয়

কথা …

বাড়ি

লেখক : বদরুদ্দোজা শেখু

পুরনো মাটির বাড়ি, খড়ে-ছাওয়া, গাছগাছালির
সবুজে ঘেরা, হাঁস মুরগীর দর্বা, লাঙল জোয়াল
ঘুঁটে লকড়ির ডাঁই, জাফরির বেড়া, বিচালির
গাদার গম্বুজ, পাশে আটচালা, সংলগ্ন গোয়াল ।
আঙিনায় খড়ে-ছাওয়া পুরাতন ধানের মরাই
গরুর গাড়ির চাকায় বসানো; টিনের ফটকে…

নববর্ষ

লেখক : ইচ্ছেমৃত্যু

অন্ধকার থেকে অন্ধকারতরের দিকে যাচ্ছি
অন্ধকারতমতা আমাদের গন্তব্য।
তবু কিছু মানুষ স্বপ্ন দ্যাখে –
নতুন শুরুর কথা কয়…;  কোরাসে।

কৃষ্ণগহ্বরে বিলীন হব আমরা –
হতেই হবে, সৃষ্টির নিয়ম মেনে;
অথচ তার বহু বহু বছর আগেই…
ক্ষমতার লোভ …

তাই ভালো

লেখক : প্রভঞ্জন ঘোষ

নাই ভালো তাই ভালো
তাই ভালো নাই ভালো কাঠি,
শুক্ কীট্ নাই ভালো
নাই ভালো ধূলো ঘাঁটাঘাঁটি।

চুম্বক নাই ভালো
তাই ভালো নাই টানাটানি-
ঠন্ ঠনে তীর নাই
নাই ভালো তাই ঝনঝনি।

কন্ঠর রেখা নাই
নাই …

ক্ষমা

লেখক : মিথুন বিশ্বাস

ক্ষমা করো প্রভু
ঘটে যদি প্রমাদ কভু
নিদারুণ কঠিনসম,
ক্ষমা করো হে নিরুপম।

কেটেছে কত অহর্নিশ
ক্ষুদ্র তুচ্ছ কর্মে, জ্ঞাতে-অজ্ঞাতে
তোমাকে ভুলে।
আমার এ ভুল
তুমি ক্ষমিও।

কত মিছে কথা, কত মিছে হাসি
কত দীর্ঘশ্বাস,
কত …

বৃষ্টির শহরে

লেখক : বদরুদ্দোজা শেখু

“চলো আজ বৃষ্টির শহরে ঘোরা যাক কিছুক্ষণ
হেঁটে হেঁটে ,চলো একাই বেরিয়ে যাই ,ফুটপাত
ধ’রে ভিজে ভিজে হেঁটে হেঁটে নোংরা জলের দাগে
কদাকার হবে হোক মসৃণ চরণ ,ধরা যাক ,বিবর্ণ স্যাণ্ডেল-জোড়া
ফুলে ফেঁপে ঢ্যাপসা চর্মের পিণ্ড …

রঙের যুদ্ধ

লেখক : শিল্পা

হোক না এবার রঙের যুদ্ধ,
রাজপথে গলিতে।
তুমি সাজাও বসন্তকে,
রামধনুর রঙেতে।
দিগন্ত জুড়ে লহরী উঠুক,
ভূমি উঠুক কেঁপে
বুনো ফুলের নেশা লাগে
গাইছে বাতাস ঝেঁপে

কৃষ্ণচূড়ায় আগুন লাগুক,
রক্ত ঝরুক অর্জুনের!
পলাশ বনে প্রণয় ঘটুক,
অন্তরের …

জগৎজয়ী

লেখক : দালান জাহান

প্রেয়সীর আবেদনে জ্বলে পূণ্য প্রদীপ
বীণার সুরে ভেসে যায় বিহঙ্গ বঁধু
প্রারম্ভের গানে বেঁধে পুষ্প ছোঁয়া চুল
ভরা নদীর জলে হাসে বর্ণমালার বেলা
তারও দূরের ডালে বসে মাছরাঙা মন
পৃথিবীর চোখে আঁকে
আকাশ-সমুদ্রের কাছে-দূরের খেলা।
উন্মণ …

কিছুটা সময় চেয়ে নেয় রেফারী

লেখক : পার্থ সরকার

কিছুটা সময় চেয়ে নেয় রেফারী
বিছিন্ন হওয়ার আগে

গোল গোল ত্রিভুজ
পাদপদ্ম্যের কাছে ভাঙা কাচের নীল ছুটি
একটু বিকেল খুনসুটি
আরো কিছুটা সময় চেয়ে নেয় রেফারী
বিছিন্ন হওয়ার আগে

অতিরিক্ত সময়ের পর
পেনাল্টি হওয়া বাকী ।…

ইরেজার

লেখক : ময়ূখ হালদার

অতঃপর সেই সুন্দর সরল চোখদুটোকে প্রতিস্থাপিত করা হলো একটা নিষ্ঠুর হৃদয়ে
তারা কি দেখবে না রক্তের স্বাদ
মায়ার মুখোশ হিংসা
নাকি হিংসার মুখ মায়া
অধরা কুয়াশা
গাছের শাখা-প্রশাখায় মিশে গেছে লাউডগা সাপ
আমি চিনতে পারিনা
এক …

অন্তর্যামী

লেখক : সুনীতা সাহা গাঙ্গুলী

আজ তোমার কাছে নালিশ আমার
হে অন্তর্যামী!
তুমি আমার অন্তরের একান্ত সাধনা।
মন্দিরে নয়, মসজিদেও নয় –
চাই যে করতে অবহেলিত অনাদর মানুষের আরাধনা।
মানুষের সুন্দর অবগাহনে
তাদের যে নেই ঠাঁই।
শুধু তোমার উপর ভরসা …

কাঁধ

লেখক : গৌতম চট্টোপাধ্যায়

কিছু আগে কিছু কাঁধে ভর করে কিছু লোককে চলে যেতে দেখলাম…..,
কিছু কাঁধের ওপর কিছু মানুষের মুণ্ডুর মতো
কিছু একটা, কেউ কেউ আবার মুণ্ডহীন,
তমস্বিনী! স্বপ্নগর্ভনম্রতা!  কবন্ধ!  না কী সবাই কনিষ্কের  ভাস্কর্য হয়ে গেল  কে জানে!