বিদায় বেলা

লেখক : দেবজিৎ দত্ত

১০ই ফেব্রুয়ারি বেলা ৪টায় থেমে গেলো বর্ণময় পথচলা,
স্মৃতি হয়ে রইলো লাঠি হাতে শালীনতার লুবধ দৃষ্টির সেই বেলা।
হারিয়ে গেলাম অচিন অনস্তে মেঘ আর কুয়াশার,
সাক্ষাৎ-এর সুযোগটাও পেলাম না একবার।
 
যতদূর চোখ যাচ্ছে চোখের সামনে ভেসে

হামরাও রাজা বঠি (আঞ্চলিক কবিতা)

লেখক : সৌরভ মাহাতো

তখন থেকে বলছি, তুই নাই শুনা পাছিস ন-কি রে! ফোনটা ইবার রাখবি নাকি কাচড়াই ভাঙে দিবো। দশ-দশ বারো হাজার টাকার ফোন লিবেক আর কাজের বেলাই ফাঁকি। বলেছিলি ন বরটাঁড়ে জাঞে এক হাল কাড়া ছেইলা কিনে দিব

চলে যাব

লেখক : লাম্মি খাতুন

আমি চলে যাব কোন এক বিদঘুটে অন্ধকার রাতে।
নিঃশব্দে, নির্বচনে, নিরালায়, চোখে শ্রাবণ ধারা
শ্রাবণের রাত তাই ধুয়ে মুছে যাবে সব।
কোন অভিযোগ আমার নেই, স্বপ্ন তো তুমি দেখাও নি;
আমি ভুল নাকি ঠিক? আমার অজানা…

জলফোঁটা

লেখক : আলী ইব্রাহিম

আদিমতায় তুমি প্রভাবমুক্ত
তোমার ইচ্ছেয় সব হয়
লক্ষণ দেখে তুমি সব বুঝতে পারো।
তোমার ধ্যানে ডুবসাঁতার কাটে ঈশ্বরপুত্র
অথচ তুমি ঈশ্বররূপে ইতিহাস গড়ো।
প্রেমিকরা বেঁচে থাকে তোমার আরাধ্যে
জলভাটা তোমাকে স্পর্শ করে না
কেননা তুমি জলধি।…

দুর্গাপুজোয় প্রেম

লেখক : ইচ্ছেমৃত্যু

দুর্গাপুজোয় কোনোদিনই টান ছিল নাকো
বলা ভুল, শৈশবে মন্ডপে ছোটাছুটি কতো
সে সব প্রাচীনকাল, কৈশোরে সবকিছু ছাড়ি
মন্ডপে কদাচি‌ৎ, তবু অকস্মাৎ যদি কোনো শাড়ি –
চোখে চোখ, মনে মনে অকিঞ্চিৎ কল্পনা
আসছে বছর আবার হোক্, আপাতত একক …

মৃত্যুশেষে

লেখক : সমীর মন্ডল

সায়াহ্ন শেষে ধূলিচ্ছন্ন নগরের পথে,
বিষম লোকের মাঝে অন্তিমের প্রস্তুতি
ক্ষনে ক্ষনে ভেসে উঠে স্বজনহারার আকুতি,
সমাপ্ত, চারকুড়ি-এর খেলা।

ওঠাপড়ার জীবন জুড়ে প্রাপ্তি যত কিছু,
শেষের বেলায় সঙ্গ দিতে কেউ নেয়নি পিছু
দাম্ভিকতা আর হিংস্রতায় কতই …

রক্তিম বসন্ত

লেখক : ইউসুফ জামিল

তুমি এসো এই বসন্তে..
দেখে যাও সমুদ্রের লোহিত বর্ণ,
যেখানে বহমান স্রোত ধারায়-
ক্রমাগত আগত এক বসন্ত।
তুমি এসো এই বসন্তে,
স্থূলতা শুধু বর্ণের বিবর্ণতায়
শব্দের মিছিল, জমকালো বিজলি
ভারি বাতাস আর বিশাল সমুদ্র-
আঁকে এক …

খুকি

লেখক : সৌরভ মাহাতো

কারা যেন ডাক দিল ওই
আম পাড়তে চল
পাড়ার যত ছেলেরা সব
করছে বিনোদন।

আমি যাবো মা বললেই খুকি,
তুই তো এখন ছোট।
বাজার থেকে এনে দেবে বাবা,
একটু সবুর করো।


লেখক পরিচিতি : সৌরভ মাহাতো

পরাবাস্তব

লেখক : প্রভঞ্জন ঘোষ

স্বাতী নক্ষত্রের জল ঝরে পড়ছে
হরিৎবর্ণ হয়ে উঠছে প্রতিটি শস্যপ্রান্তর
আকাশের আয়নায় বিচ্ছুরিত আভরণ।

স্বাতী নক্ষত্রের জল ঝরে পড়ছে
রত্নগর্ভ হয়ে উঠছে আসমুদ্রসৈকত
ঝিনুকের বুক চেরা সুডৌল মুক্তো!
সে এক পক্ষী নৈসর্গিক কুয়াশার
ঊর্ধ অঞ্চলে বারি …

স্বাভাবিক

লেখক : আলী ইব্রাহিম

তোমাকে আর সতর্ক করবো না
তোমার অন্তর ও কান মহর আচ্ছাদিত।
চোখে আবরণ। তুমি আজ কিছুই দেখছো না!
আমি আর তোমার কাছে বিশ্বাসী হতে চাই না
তোমার চলে যাওয়া দেখে অবাক হয়েছি
পরিহাসের পরিণামে অবাধ্য ঘুরে …

ঘুড়ি

লেখক : লাম্মি খাতুন

আমি ঘুড়ি
তোমার আকাশেই উড়ি।
দূর-দূরান্তে যাই
তোমার গান গাই।
মাথা দুলে দুলে চলি
তবু তোমার টানে ফিরি।
সুতা কেটে দেয় যদি শালিকের দলে
আমার ঠাঁই বাঁশবনের ভাগাড়ে।
যতই উপরে যাই,
নিয়ন্ত্রণ তোমার হাতেতেই রয়।
ছুটে …

বাধা

লেখক : মনির উদ্দিন নিয়াজি

যেতে হবে অনেক দূর,
বাধা পিছু ছাড়ছে না।

বাধা ভেঙ্গে এগিয়ে যাই,
বাধার তো শেষ পাই না।

সব পেরিয়ে সফল হব,
কারো বাধা মানবো না।

সবাই তখন বাহ বাহ দিবে,
বাধা তখন থাকবে না।


লেখক

ওরা

লেখক : রাজীব চক্রবর্ত্তী

ওরা প্রাণপণে ভালবেসেছিল,
উত্তাপ নিয়েছিল বুক ভরে।
শরীরে শরীর মিলেছিল, শুধু
মেলেনি ঈশ্বর। তাই,
হিমঘরে বাসর পেতেছিল।

মেরুদন্ড খোঁজেনি মেরু,
ওরা আগুন হাতে
আঁধারে পথ হেঁটেছিল।
অন্ধ কুঠুরিতে একদিন,
তারা ভরা রাতে
মৃত্যু আলো জ্বেলেছিল।

বুকে …

Back to Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

বিভিন্ন লেখকের কবিতা গল্প পাঠ শুনতে এখানে ক্লিক করুন

লেখালিখি লোগো