আলোর সন্ধানে

লেখক : শুভাণ্বিতা রায়

বছর তিরিশের অনির্বাণ দত্ত।খুঁজতে খুঁজতে চলে এলেন নিষিদ্ধ পল্লীতে।রাত তখন দশটা।পল্লীর রাস্তার ধারে, চায়ের দোকানে, ঘরের বাইরে সারি সারি করে লেহেঙ্গা পরিহিতা মেয়েরা দাঁড়িয়ে। প্রত্যেকেরই চোখে মুখে এমন লোলুপ দৃষ্টি যেন পুরুষকে আকর্ষণ করে।অনির্বাণ অর্থাৎ অনির …

শিল্পীর লড়াই

লেখক : সমীর মন্ডল

তাদের মধ্যে কেউবা তাড়া খাওয়া উদ্ধাস্তু, আবার কারো বা পিঠে এখনও দগদগে, কাঁটা তারের সেই দাগ। ঢাকা বিক্রমপুরের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে উঠে এসেছিল যারা আপনার উঠোনে একটু খুব বাংলা এনে দিতে, হ্যাঁ তাদের মধ্যেই কেউ কেউ …

পুরন্দরের সাথে মাঝরাতে

লেখক : রাজীব চক্রবর্ত্তী

গরমে ঘুম ভেঙে গেল। সন্ধ্যেবেলা বৃষ্টি হয়েছে। তবু গুমোট ভাব গেল না। যাবে কি করে? তেতে ওঠা মাটির খিদে কি ছিটে ফোঁটায় মেটে! শুকনো গলায় জল ঢেলে দাঁড়ালাম বারান্দায়। আকাশে তারা নেই। বাতাস ছুটি নিয়েছে। গাছের …

অদ্ভুতুড়ে

লেখক : সমীর মন্ডল

“লাল মাটির দেশ” পুরুলিয়াতে এই নিয়ে বার ছয়েক তো হবেই। ঠিক হলো হাওড়া থেকে রূপসী বাংলা এক্সপ্রেসে পুরুুুলিয়া ও পরে সেখান থেকে গাড়িতে ‘কয়রাবেড়া ইকো অ্যাডভেঞ্চার রিসর্ট’। প্রতিবারের মতো এবারের ভ্রমন সূচিতেও রয়েছে অযোধ্যা পাহাড়, পাখি …

ঐ পাড়ে

লেখক: রুবাই শুভজিৎ ঘোষ

রাত্রিবেলা খাবার পরে দাঁত মাজা শেষ হলে মুখে জলের ঝাপটা দিল অর্ণব। কয়েক ফোঁটা জল ছিটকে বেসিনের আয়নাটাতেও লাগল। স্থির জলের মধ্যে জলের ফোঁটা পড়লে যেমন তরঙ্গের সৃষ্টি হয়, আয়নাটাতেও তেমনিই তরঙ্গের সৃষ্টি হল। মুখ তুলে …

মেঘমালার এক মুহূর্ত

লেখক : রাজশ্রী ঘোষ

মেঘমালা আজ একটু স্বস্তি বোধ করছে কারণ বিনীত আজকে অন্যদিন এর চাইতে অনেকটা ভালো আছে। আজ একবছর পর বিনীত তার ডান হাতটা মেঘমালার হাতের ওপর রেখেছে ।তাদের দশ বছরের বিবাহিত জীবন, বিনীত আজ চারবছর হলো বিছানায় …

নির্লজ্জ

লেখক: ইচ্ছেমৃত্যু

লজ্জা – ১

সকল লোকের মাঝে বসে/ আমার নিজের মুদ্রাদোষে/ আমি একা হতেছি আলাদা?” উত্তরটা জানা নেই। তবে আমার বয়সী বন্ধুরা বিয়ে-থা করে দু-এক পিস বাচ্চা সমেত ঘোরতর সংসারী। আর আমি আমার এক কামরার একলা ঘরে …

শেকল

লেখক : অর্পিতা

নয়ন জানলাটা বন্ধ করে দিল। কিন্তু ততক্ষণে ঝোড়ো হাওয়া ঘরে ঢুকে ওলটপালট করে দিয়েছে সবকিছু। বিকেল থেকেই গুমোট হয়ে ছিল চরিপাশ৷ যেন অভিমানে আকাশ বুক বেঁধেছে । আশে পাশের বাড়ি থেকে শাঁখের আওয়াজ শুরু হতে না হতেই

মুক্তি

লেখক : জয়দীপ চক্রবর্তী

একটা নির্জন বাড়িতে রক্ত-ধারা বয়ে চলেছে মেঝের একপ্রান্ত হতে আরেক প্রান্তে। সিলিং-এর দিকে অপলক দৃষ্টিতে শুয়ে আছে একজন ঠাণ্ডা স্থির নারী। অন্ধকার ঘরের জানালা দিয়ে অনধিকার প্রবেশ ঘটেছে রাস্তার আলোর। সেই আলোতেই অস্পষ্ট ভাবে ধরা দিচ্ছে …

একটি ভূতাত্বিক প্রতিবেদন

লেখক : প্রদীপ কুমার সেনগুপ্ত

কালুবাবু কাল বিকেল বেলায় এসে হাজির আমার বাসায়, বলল, ‘আপনাকে একবার আমার সাথে যেতে হবে স্যার’। আমি বললাম, ‘কোথায়?’

‘এই একটু গিদনির কাছে। আমি একটা পাথরের খাদানের লিজ নেবো ভাবছি। আপনি আমার সাথে চলেন। একটু …

নষ্ট ছেলে

লেখক : চন্দ্রানী চট্টোপাধ্যায়

ভোর পাঁচটা। ঠান্ডা হিমেল হাওয়া। শীতটা জাঁকিয়ে পড়েছে। বাইরে এখন বেশ অন্ধকার। সৌভিককে চার দিনের জন্য ব্যাঙ্গালোর যেতে হবে আজ। তুলিকার মনটা খারাপ হয়ে যায়। ওর অফিস না থাকলে ঠিক যেত সৌভিকের সাথে।

বাইরে অফিসের ক্যাব …

জ্যোৎস্না মাখা যামিনী

লেখক: রুবাই শুভজিৎ ঘোষ

মাল্টিন্যাশানাল আই টি কোম্পানিগুলোর এই একটা সুবিধের কথা মানতেই হবে। ভাষা-ধর্ম-জাতি-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই এখানে কাজ করি একসাথে, এবং এই মেলামেশাটা অন্যান্য চাকরির তুলনায় অনেকটাই বেশি। আর মেলামেশা যত বেশি হয়, মনের সঙ্কীর্ণতাটা হয় তত কম। কাজ …

অদ্বৈত

লেখক : সিদ্ধার্থ

বরাহনগরের বাড়িটার সামনে যখন এসে দাঁড়ালাম, সূর্য তখন পরপারে।অন্ধকার নেমে আসছে,বাসায় ফিরতে দেরি করে ফেলা পাখিরা ব্যস্ত হয়ে উড়ে যাচ্ছে ঘরের দিকে।
 
বাড়িটা চারতলা, বেশিরভাগ রেলের শ্রমিকদের, গ্রাম থেকে দূরে থাকা দোকানের কর্মচারীদের বাস।সকাল নয়টার মধ্যে
Back to Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।