মুক্তির স্বাধীনতা

কবি: শিবানী পান্ডা

‘স্বাধীনতা’ ইভেন্টে তৃতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত কবিতা

সিংহাসনে সিরাজদ্দৌলা বাংলার দক্ষ নবাব,

রবার্ট ক্লাইভের পলাশীর যুদ্ধে হলেন কুপোকাত।

কোম্পানির শাসন কায়েম হল সমগ্র দেশ জুড়ে,

ব্রিটিশ বণিক মানদণ্ড ভুলে রাজদণ্ড ধরে।

ইংরেজ রাজে স্বৈরাচারে নির্মম নির্যাতন,

পরাধীনতার শৃংখলে শৃঙ্খলিত ভারতীয় জনগণ।

অকল্পনীয় অবিস্মরণীয় সূচনা সংগ্রাম সাধনা,

নরম চরম দুই দলের স্বাধীনতা অভীষ্টে ভারত মা।

পরাধীনতার শক্ত মাটিতে মুক্তির লড়াই ডাক,

এখনো উজ্জ্বল বিপ্লবী ভাইয়ের রক্তে রাঙানো দাগ।

ভারত মাতার কোল জুড়ে ঠাঁই আমাদেরই অধিকার,

নবীন প্রবীণ সহ-সংগ্রাম মানেনি ওরা হার।

ফাঁসির দড়িতে শুনতে কি পাও শহীদ ক্ষুদির গান?

“ফিরবো আমি” আগাম বার্তা মরবে না মোর প্রাণ।

নরমপন্থীর ভারতছাড়ো স্লোগান গান্ধীজীর,

চরমপন্থী আজাদহিন্দ ফৌজ বঙ্গপুত্র নেতাজির।

লোহার বেড়ির ঝমঝম সুর ওঠে সেলুলার জেলে,

বীর সাভারকর লাখো বিপ্লবী অনশন অত্যাচারে মরে।

দুশো বছর আত্মত্যাগে ভারতে স্বাধীন সূর্য উদিত,

দুঃখ-সুখের পনেরো-ই আগস্ট প্রতিবছর উদযাপিত।

তিয়াত্তর বছর পার হয়েছে তবু সত্যি মোরা স্বাধীন?

প্রশ্নেরা দিচ্ছে তাড়া উত্তর আজও ক্ষীণ।

বেকারত্বে পেটের জ্বালা নারী সুরক্ষা কোথায়?

জ্বলছে যুবা অর্থ তাড়ায় নারী পতিতালয়ে যায়।

শিক্ষা-দীক্ষা থাকা-খাওয়ার চাই স্বনির্ভরতা,

দাঙ্গা-লড়াই দলের-বড়াই ভোলো বৈষম্য সাম্প্রদায়িকতা।

প্রেম-প্রীতি দিয়ে গড়ুক ভারত ফিরুক শান্তির নম্রতা।

প্রণতি লহ ভারত-মাতা বিশ্ববরেণ্য গৌরবজ্জল স্বাধীনতা।

“সারে জাহা সে আচ্ছা হিন্দুস্তান হামারা”


ছবি: কুন্তল


লেখকের কথা: শিবানী পান্ডা
শিবানী পাণ্ডার জন্ম ৬ই ফ্রেব্রুয়ারী ১৯৯৬, মেদিনীপুর জেলার নস্করপুর গ্রামে। বাবা সঞ্জীব পান্ডা, মাতা সবিতা পান্ডা। প্রাথমিক শিক্ষা বাসুদেবপুর মতিলাল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। পরবর্তী উচ্চশিক্ষা গনেশ্বরপুর দেবী হেমাঙ্গিনী হাই স্কুলে। দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষার পর পরই বিবাহিত জীবনে প্রবেশ। স্বামী চন্দন কুমারের অনুপ্রেরণায় পড়াশুনার পাশাপাশি জীবন নিয়ে লেখালেখিও থেমে থাকেনি। সাংসারিক কাজ সামলে, ইগনু থেকে গ্রাজুয়েশান করে এখন এম এ পাঠরতা।

শেয়ার করে বন্ধুদেরও পড়ার সুযোগ করে দিন
  •  
  •  
  •  
  •  

34 Comments

  1. অজ্ঞাতনামা কেউ একজন

    খুব ভালো লেগেছে কবিতাটি। বঙ্গ সন্তান নিয়ে লেখা কবিতাটি , পৃথিবী যতদিন বেঁচে থাকবে ততদিন বেঁচে থাকবে ।

  2. Biplab Bhattachrya

    যারা জলে ভেজা তারা পোশাক বদলায়
    যারা ঘামে ভেজে তারা সমাজ বদলায়।
    ফুটপাতের ক্ষুধার্ত শিশু স্বাধীনতা না চায়
    একটু নুন ভাত ওরা কবে পাবে হায়।
    স্বাধীনতা কি? কোথায় আছে? খায় না মাখে?
    জেনে রেখো এ পোড়া দেশ আজও অসহায়।

  3. Biplab Bhattachrya

    যারা জলে ভেজা তারা পোশাক বদলায়
    যারা ঘামে ভেজে তারা সমাজ বদলায়।
    ফুটপাতের ক্ষুধার্ত শিশু স্বাধীনতা না চায়
    একটু নুন ভাত ওরা কবে পাবে হায়।
    স্বাধীনতা কি? কোথায় আছে? মাখে না খায়
    জেনে রেখো এ পোড়া দেশ আজও অসহায়।

  4. রহস্যময় ফিনিক্স

    বোন, খুব সুন্দর লিখেছো। মনে হল যেন ভারতের পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতার ইতিহাসের সংক্ষিপ্ত সার পড়লাম।
    ~দাদাভাই।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

আপনি কি আমাদের সাইটে লিখতে ইচ্ছুক?

তাহলে এখানে ক্লিক করে লেখা জমা দিন।