রাজার সেকাল রাজার একাল

কবি :  কৌস্তভ দত্ত 

আজ কিছু রাজার কথা লিখি ;
ইতিহাস যাদের মনে রেখেছে চিরকাল।
সে এক রাজা ছিল, 
বাবার কথা রাখতে যে অবলীলায় বনবাসে গিয়েছিলো।
সে এক রাজা ছিল, 
ইন্দ্রকে তাঁর  কবজ কুন্ডল যে অবলীলায় দান করেছিল।
সে এক রাজা ছিল, 
কলিঙ্গের দয়া নদীর রক্তের স্রোত যাকে কাঁদিয়ে দিয়েছিলো;
অবলীলায় যুদ্ধ ছেড়ে যে শান্তির পথে হেঁটেছিল।
সে এক রাজা ছিল, 
কুম্ভ মেলায় তার সর্বস্য বিলিয়ে যে ফকির হয়ে প্রাসাদে ফিরত।
সে এক রাজা ছিল – 
ইতিহাস তাদের মনে রেখেছে চিরকাল।
আমি নিরো কে দেখিনি,
দেখিনি আগুনে ছারখার হয়ে যাওয়া রোমসাম্রাজ্য কে 
আমি শুনিনি তার মনোমুগ্ধকর বীণার সুর,  
কিন্তু, আমি এক রাজাকে দেখেছি- 
দেশের মানুষ যখন অসহায়, বাঁচার আর্তি যখন প্রবল তাদের চোখে মুখে ,  
দেশের অর্থনীতির  শিরদাড়া টা যখন মরমর করছে, 
খিদের জ্বালায় যখন দেশ জ্বলছে, 
তখন সেই রাজাকে ধর্মের যজ্ঞে আগুন দিতে দেখেছি।
পেট ভরে খেতে চাইলেই যুদ্ধের জিগির তুলতে দেখেছি।
চিৎকার করে নিজেকে ফকির বলতে শুনেছি,
কিন্তু, দুহাতে কখনো কিছু বিলোতে দেখিনি।


লেখক পরিচিতি: কৌস্তভ দত্ত
১৯৯১ সালে জন্ম, মিত্র ইনস্টিটিউশন থেকে মাধ্যমিক, বোড়াল হাই স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এর অধীনস্থ নেতাজি নগর ডে কলেজ থেকে ভূগোলে স্নাতক, বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ। পেশায় গৃহশিক্ষক। কলেজ জীবন থেকে কবিতা লেখা শুরু।

শেয়ার করে বন্ধুদেরও পড়ার সুযোগ করে দিন

4 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।